নেই লাইসেন্স-চিকিৎসক-নার্স, তুবও চলছিল ৩ ক্লিনিক

প্রকাশিত: ৯:১৭ পূর্বাহ্ণ, জানুয়ারি ১৯, ২০২১

লাইসেন্স, চিকিৎসক, নার্স এমনকি প্রয়োজনীয় চিকিৎসা সরঞ্জাম ছাড়াই চলছিল ক্লিনিক। চিকিৎসা সেবার নামে প্রতারণার অভিযোগে এমন তিনটি ক্লিনিক সিলগালা করে দিয়েছে স্বাস্থ্য বিভাগ।

সোমবার (১৮ জানুয়ারি) যশোরের শার্শা উপজেলার বাগআঁচড়া এলাকার সিভিল সার্জনের নেতৃত্বে এক অভিযানে ওই ক্লিনিকগুলো বন্ধ করে দেয়া হয়।

সিভিল সার্জন ডা. শেখ আবু শাহীন জানিয়েছেন, কেবল ব্যবসায়িক উদ্দেশ্যে যশোর সদরসহ বিভিন্ন উপজেলার ছোট-বড় বাজারগুলোতে অবৈধভাবে হাসপাতাল, ক্লিনিক, ডায়াগনস্টিক সেন্টার খুলে প্রতারণা করা হচ্ছে। দফায় দফায় সতর্ক করলেও তারা প্রতারণামূলক কার্যক্রম থেকে সরে আসেনি।

তিনি বলেন, স্বাস্থ্য বিভাগের অনুমোদন ছাড়াই এসব ক্লিনিক ও হাসপাতালে আবাসিক রোগীও দেখা হচ্ছে। সোমবার বিকেলে শার্শার বাগআঁচড়ায় অভিযান চালিয়ে এমন তিনটি ক্লিনিকের অস্তিত্ব পাওয়া যায়। যেখানে অনুমোদন তো নেই, সেইসঙ্গে ডাক্তার-প্রশিক্ষিত নার্সও নেই। এরপরও প্রতিদিন রোগী দেখা ও ভর্তি করা হচ্ছে। দেয়া হচ্ছে বিভিন্ন প্যাথলজিক্যাল পরীক্ষা-নিরীক্ষা। এ কারণে জনসেবা ক্লিনিক, বাগআঁচড়া ক্লিনিক ও আল মদীনা ক্লিনিককে বন্ধ ঘোষণা করে সিলগালা করা হয়।

অভিযানকালে শার্শা উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. ইউসুফ আলী, সিভিল সার্জন অফিসের মেডিকেল অফিসার ডা. রেহনেওয়াজ ও প্রশাসনিক কর্মকর্তা আরিফুজ্জামান উপস্থিত ছিলেন।


সম্পাদক

মোঃ আবুল হাসান মোবাইল নাম্বার 01860003666

বার্তাকক্ষ

মোবাইল নাম্বার 09638870180