জামিন পেলেন দুধের শিশুকে নিয়ে হাজতে রাত কাটানো নিলুফার

প্রকাশিত: ১:৩৯ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ২৬, ২০২১

ডেস্ক রাজশাহীর দুর্গাপুরে এনজিও’র ঋণের দায়ে এক বছরের শিশুসহ জেলে যাওয়া মা নিলুফা বেগম আদালত থেকে জামিন পেয়েছেন।

বেসরকারি ‘বীজ’ নামক একটি এনজিও সংস্থার চেক ডিজনার মামলায় সোমবার শিশুসহ নিলুফাকে গ্রেফতার করে জেলহাজাতে পাঠায় পুলিশ। নিলুফার উপজেলার মাড়িয়া গ্রামের দিনমজুর আব্দুস সালামের স্ত্রী।

সোমবার রাজশাহী জেলা বিজ্ঞ যুগ্ম তৃতীয় আদালতে হাজির হয়ে জামিন আবেদন করলে বিচারক তার জামিন আবেদন মঞ্জুর করেন। আসামির আইনজীবী হিমেল হোসনাইন এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

জানা গেছে, দুই বছর আগে ‘বীজ’নামক এক এনজিও সংস্থা থেকে নিলুফা মাসিক কিস্তিতে ১ লাখ টাকা লোন নেন। তারপর একটানা চার কিস্তি পরিশোধ করেন। এরপর হঠাৎ নিলুফার স্বামী সালাম অসুস্থ হয়ে পড়লে কিস্তি আটকা পড়ে।

পরে এনজিও’র চাপের মুখে মামলার ভয়ে এলাকার দাদন ব্যবসায়ীর কাছ থেকে চড়া সুদে টাকা নিয়ে এনজিওর ম্যানেজারকে একটি কিস্তি দেন নিলুফা দম্পতি। পরের মাসে দাদন ব্যবসায়ীর চাপে সুদের টাকা পরিশোধ করতে গিয়ে এনজিও’র কিস্তি দিতে অপারগতা প্রকাশ করেন তারা। ক্ষিপ্ত হয়ে ‘বীজ’ এনজিওর দুর্গাপুর শাখার ব্যবস্থাপক মহিরুল ইসলাম আব্দুস সালামের স্ত্রী নিলুফার বেগমের জমা রাখা জনতা ব্যাংকের চেক ডিজনার করে নিলুফাকে আসামি করে আদালতে মামলা করেন। টাকার অভাবে আদালতে হাজিরা দিতে না পারায় আদালত দিনমজুর আব্দুস সালামের স্ত্রী নিলুফার নামে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করে।

রোববার রাতে পুলিশ উপজেলার মাড়িয়া গ্রামের নিজবাড়ী থেকে সালামের স্ত্রী নিলুফাকে এক বছরের সন্তানসহ গ্রেফতার করে। দুধের শিশু সামিয়াকে নিয়ে মা নিলুফা বেগম থানায় রাতভর আটক থাকার পর সোমবার শিশুকন্যা সামিয়াসহ মা নিলুফা বেগমকে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠায় পুলিশ।

দুর্গাপুর থানার ওসি হাশমত আলী বলেন, আদালত থেকে গ্রেফতারি পরোয়ানা আসায় পুলিশ তাকে গ্রেফতার করে।

এ বিষয়ে জানতে বেসরকারি এনজিও সংস্থা ‘বীজ’ এনজিওর দুর্গাপুর শাখার ব্যবস্থাপক মহিরুল ইসলামের মুঠোফোনে কল করলে তিনি ফোন রিসিভ করেননি।


সম্পাদক

মোঃ আবুল হাসান মোবাইল নাম্বার 01860003666

বার্তাকক্ষ

মোবাইল নাম্বার 09638870180