মুরাদনগরে গৃহবধুকে কুপিয়ে খুন: ঘাতক দুই বন্ধু গ্রেফতার

প্রকাশিত: ১:৫৭ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ১৫, ২০২১

কুমিল্লা প্রতিনিধি কুমিল্লার মুরাদনগরে মাদকাসক্ত স্বামী সুমন মিয়া তার বন্ধু সাদ্দাম হোসেনকে সাথে নিয়ে স্ত্রী আখি আক্তারকে বটি দা দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করেছে। ঘটনার সাথে জড়িত দু’জনকে আটক করেছে পুলিশ। ঘাতক স্বামী পুলিশের কাছে স্বীকারোক্তি দিয়েছে।গত শনিবার (১৩ ফেব্রুয়ারি) রাতে উপজেলার ধামঘর ইউনিয়নের পরমতলা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

মামলা ও পরিবার সূত্রে জানা যায়, ঘটনার শিকার পরমতলা গ্রামের মৃত মনু মিয়ার মেয়ে আখি আক্তারকে (২৮) বিগত ১২ বছর আগে বিয়ে করেন পাশের দেবিদ্বার উপজেলার রাজামেহার গ্রামের শহীদ মিয়ার ছেলে সুমন মিয়া (৩০)। বিয়ের কিছুদিন পরেই আখি আক্তার টের পায় তার স্বামী মাদকাসক্ত। স্বামীকে মাদক থেকে ফিরিয়ে আনতে স্বজণদের নিয়ে চেষ্টা অব্যাহত রাখেন। এরই মধ্যে তাদের সংসারে এক এক করে দুই মেয়ে ও এক ছেলের জন্ম হয়। কিন্তুু মাদক থেকে ফিরে আসেনি সুমন।

বরং তার বন্ধু একই গ্রামের আব্দুল মালেকের ছেলে সাদ্দাম হোসেনকে সাথে নিয়ে মাদক সেবনে বেপরোয়া হয়ে ওঠে সে। শনিবার সন্ধ্যায় বসত ঘরে সাদ্দাম ও সুমন মিলে মাদক সেবন করতে গেলে আখি আক্তার বাধাঁ দেয়। এতে ক্ষীপ্ত হয়ে সুমন ও তার বন্ধু সাদ্দাম বটি দা দিয়ে এলোপাথারি কুপিয়ে আখি আক্তারকে গুরতর আহত করে। তার শোর-চিৎকারে প্রতিবেশীরা এসে তাকে দেবিদ্বার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেয়। অবস্থার অবনতি হওয়ায় কর্তব্যরত ডাক্তার আখি আক্তারকে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করেন। শনিবার রাত দেড়টায় চিকিৎসারত অবস্থায় সে মারা যায়। এ ঘটনায় নিহতের মা খোরশেদা বেগম (৫৫) বাদী হয়ে রোববার বিকেলে মুরাদনগর থানায় একটি হত্যা মামলা রুজু করেন।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ও মুরাদনগর থানার এসআই আবু হেনা মোহাম্মদ মোস্তফা রেজা বলেন, মাদক সেবনে বন্ধুর সামনে বাধাঁ দেওয়ায় সুমন মিয়া তার স্ত্রী আখি আক্তারকে বটি দা দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করে। ঘটনার সময় সাদ্দাম হোসেন তাকে সহায়তা করে। কৌশলে দু’জনেই আটক হওয়ার পর ওই স্বীকারোক্তি দেয় সুমন। সোমবার তাদেরকে আদালতে সোপর্দ করা হবে।


সম্পাদক

মোঃ আবুল হাসান মোবাইল নাম্বার 01860003666

বার্তাকক্ষ

মোবাইল নাম্বার 09638870180