চাঁদপুরে দুই মাসের মধ্যে ইলিশ ধরলেই ২ বছর জেল

প্রকাশিত: ১১:৫৪ পূর্বাহ্ণ, মার্চ ১, ২০২১

চাঁদপুর প্রতিনিধি: ইলিশ সম্পদ রক্ষায় চাঁদপুরের পদ্মা ও মেঘনায় রোববার (২৮ ফেব্রুয়ারি) রাত ১২টা থেকে দুই মাস (মার্চ ও এপ্রিল) মাছ ধরা বন্ধ থাকবে।

অভয়াশ্রম ও জাটকা রক্ষা কার্যক্রম উপলক্ষে জেলেদের জন্য এই দুই মাস ভিজিএফের চাল বরাদ্দ দেওয়া হবে। এ সময় (১ মার্চ থেকে আগামী ৩০ এপ্রিল পর্যন্ত) মেঘনা নদীর অভয়াশ্রম এলাকায় জালসহ যেকোন সরঞ্জাম দিয়ে জাটকা এবং সকল ধরনের মাছ আহরণ নিষিদ্ধ থাকবে।

সরকারি নির্দেশনা মতে, এ সময় কোন মাছ ক্রয়-বিক্রয়, পরিবহন ও মজুদ সর্ম্পূণ নিষিদ্ধ থাকবে। আইন অমান্য করে কেউ মাছ আহরণ করলে তার বিরুদ্ধে মৎস্য আইনে দুই বছর কারাদণ্ড, ৫ হাজার টাকা জরিমানা অথবা উভয় দণ্ডে দণ্ডিত করা হবে।

রোববার (২৮ ফব্রুয়ারি) সকাল ১০টা থেকে শুরু করে মতলবের ষাটনল থেকে হাইমচর উপজেলার কাটাখালি, হাইমচর, চরভৈরবী ও মেঘনা নদীর পশ্চিম ভাসমান মৎস্য আড়ত এবং জেলে পাড়ায় মাইকিং করে জেলেদের জাটকাসহ সকল ধরনের মাছ আহরণ থেকে বিরত থাকার জন্য সতর্ক করে দেওয়া হয়েছে।

জেলা মৎস্য কর্মকর্তা আসাদুল বাকি বলেন, চাঁদপুরে জেলা টাস্কফোর্সের উদ্যােগে প্রচারণা অভিযানে উপজলা সিনিয়র মৎস্য কর্মকর্তা, কোস্টগার্ড, নৌ পুলিশসহ টাস্কফোর্সের সদস্য দায়িত্ব পালন করবে।

তিনি আরও জানান, ‘আমরা প্রথম কিস্তিতে ৪০ হাজার ৫টি মৎস্যজীবী পরিবারের জন্য দুই মাসের প্রতি মাসে ৪০ কেজি হিসাবে মোট ৩২ লাখ ৪০ মেট্রিক টন চাল বরাদ্দ করেছি। গত বছর এই বরাদ্দের পরিমাণ ছিল ৩৮ হাজার ৫টি মৎস্যজীবী পরিবারের জন্য ৩০ লাখ ৪০ হাজার ৪০ মেট্রিক টন। এই চাল চাঁদপুর, হাইমচর, মতলব উত্তর ও মতলব দক্ষিণ উপজেলায় প্রশাসনের মাধ্যমে পৌঁছানো হয়েছে।’

জেলা প্রশাসক অঞ্জনা খান মজলিশ বলেন, চাঁদপুর জেলার মতলব উত্তর উপজেলার ষাটনল থেকে হাইমচর উপজলার চরভৈরবী পর্যন্ত প্রায় ৯০ কিলোমিটার এলাকায় মার্চ-এপ্রিল দুই মাস মাছ শিকার নিষিদ্ধ। শুধু তাই নয়, নদীতে স্পিডবোট চলাচলও নিষিদ্ধ করা হয়েছে। জাটকা রক্ষায় আমাদের ব্যাপক কার্যক্রম পরিচালনা করা হচ্ছে। এ জন্য জেলেদের আমাদেরকে সহায়তা করতে হবে।


সম্পাদক

নির্বাহী সম্পাদকঃ মাসুদ রানা পলক প্রকাশক মোঃ আবুল হাসান মোবাইল নাম্বার 01860003666

বার্তাকক্ষ

মোবাইল নাম্বার 09638870180