হরিপুরে সরকারি পুকুর হতে অবৈধ ভাবে বালু উত্তোলনের অভিযোগ

প্রকাশিত: ৩:০৭ অপরাহ্ণ, মার্চ ৪, ২০২১

নুর মোহাম্মদ,হরিপুর(ঠাকুরগাঁও) প্রতিনিধি : ঠাকুরগাঁওয়ের হরিপুর উপজেলার চাপধা ঈদগাহ নির্মাণে সরকারি পুকুর হতে অবৈধ ভাবে বালু উত্তোলন করে বিক্রির অভিযোগ উঠেছে।

সরকারি পুকুরে বালুড্রেজার ম্যাশিন বসিয়ে ১ মাস যাবত বালু উত্তোলন করছে৷চাপধা মসজিদ কমিটির সভাপতি ও সাবেক আর্মি রকিম ও প্রফেসর সোয়েল বালু উত্তোলন করে ইদগাহ নির্মানের নামে বালুগুলো বিক্রি করছে৷

এলাকাবাসী ও সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা, গেছে হরিপুর উপজেলার ৩ নং বকুয়া ইউনিয়নের চাপধা গ্রামের চাপধা পুকুর হতে বালু উত্তোলন করা হয়৷

সরকারি পুকুরের বালু কেনো উত্তোলন করা হচ্ছে জানতে চাইলে প্রফেসর সোহেল বলেন, আমি একাই কেনো তুলব এটা তো ঈদগাহ জন্য তোলা হয়েছে৷চাপধা ঈদগাহ কমিটি তো নাই মসজিদ কমিটি সভাপতি রকিম আর্মি সব কিছু বলতে পারবে৷বালু উত্তোলনের বিষয়ে ইউএনওর কাছে অভিযোগ হয়েছিল৷এই বিষয়টা সবাই জানে৷আজ আমরা ইউএনও অফিসে বসছিলাম৷বর্ষা চেয়ারম্যান ও ভাইস চেয়ারম্যান ছিল৷এক সাথে বসে সব ঠিক করেছি৷

আমি হচ্ছি এর হেড৷প্রফেসর সোহেল বলে সরকারি পুকুরটি আমার নামেই লিজ আছে৷বালু উত্তোলন করলে কোনো সমস্যা নাই৷এতে আরো মাছের জন্য ভালো৷আপনি ভাইস চেয়ারম্যানের সাথে কথা বলেন৷

চাপধা মসজিদ কমিটির সভাপতি ও (সাবেক আর্মি)মোঃ রকিম বলেন,বালু উত্তোলনের বিষয়টি স্বীকার করেন৷ঈদগাহ উন্নয়নের জন্য বালু উত্তোলন করা হয়েছে৷বিষয়টি ইউএনওর নলেজে দেওয়া আছে৷বালু উত্তোলনের পারমিশন দিছে কিনা এম প্রশ্নের করা হলে তিনি বলেন,যদি ঈদগাহ কাজ হয় তাহলে দিবে৷ হ্যাঁ দিছে দিছে৷

নাম প্রকাশ্যে অনিচ্ছুক গ্রামবাসীরা বলেন,আমরা এই পুকুর পারে প্রায় ৪৭ টি পরিবার বসবাস করি৷ঈদগাহ নির্মাণের নামে বালু উত্তোলন করে৷প্রফেসর সোহেল ও মসজিদ কমিটির সভাপতি ও (সাবেক আর্মি) রকিম পুকুর থেকে যেভাবে বালু উত্তোলন শুরু করছে৷অল্প কিছু দিনের মধ্যে পুকুরের পারে বাড়ি গুলো ভেঙ্গে পুকুরে তলিয়ে যাবে৷আমরা এর প্রতিকার চাই৷

এ প্রসঙ্গে হরিপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার আব্দুল করিম সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন,ঔই বালু দিয়ে আমি ঘর বানাবো৷


সম্পাদক

নির্বাহী সম্পাদকঃ মাসুদ রানা পলক প্রকাশক মোঃ আবুল হাসান মোবাইল নাম্বার 01860003666

বার্তাকক্ষ

মোবাইল নাম্বার 09638870180