পলাশবাড়ীতে আদালতের নিষেধাজ্ঞা অমান্য নালিশী জমিতে প্রবেশের চেষ্টা

sagar sagar

Hasan

প্রকাশিত: ৪:৪৫ অপরাহ্ণ, মার্চ ১০, ২০২১

এন এম সরকার-
গাইবান্ধার পলাশবাড়ীতে আদালতের নিষেধাজ্ঞা ও থানা পুলিশ কর্তৃক শান্তি শৃঙ্খলা বজায় রাখার নোটিশ দেয়া স্বর্ত্বেও বিবাদী কর্তৃক নালিশী জমিতে প্রবেশ করে অবকাঠানো নির্মাণের চেষ্টা।

জানা গেছে, পলাশবাড়ী পৌর শহর এলাকার হরিণমারী গ্রামের মৃত লাল মিয়ার স্ত্রী মোমেনা বেগম তার পৈত্রিক সূত্রে প্রাপ্ত জমিতে বসতবাড়ী নির্মাণ করিয়া ভোগদখল করে আসছিল। অন্য দিকে নুনিয়াগাড়ী গ্রামের মৃত আঃ রহিমের ছেলে রশিদুনবী চাঁন ও আমবাড়ী গ্রামের মৃত আঃ কুদ্দুসের ছেলে ময়েন মাষ্টার নালিশী জমি নিজেদের বলে দাবী করেন। ফলে বাদী, বিবাদীদের বিরুদ্ধে বিজ্ঞ অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট গাইবান্ধার আদালতে একটি পিটিশন মামলা ১৮৫/২০২১ (পলাশ) এবং ফৌঃকাঃবিঃ আইনের ১৪৪/১৪৫ ধারায় পৃথক দুটি মামলা দায়ের করেন। বিজ্ঞ বিচারক বাদীর অভিযোগপত্র আমলে নিয়ে আগামী ২৭’এপ্রিল ২০২১’তারিখে উভয়পক্ষকে আদালতে হাজির হয়ে মামলা নিষ্পত্তি করার জন্য আদেশ দেন, আদেশ নং- ০১, তারিখ ০৩/০৩/২০২১। ইহা মূলে আদেশ করেন যে, উভয়পক্ষই তর্কিত/নালিশী জমিকে কেন্দ্র করিয়া কোন প্রকার দাঙ্গা-হাঙ্গামা বা আইন শৃঙ্খলা পরিস্থির অবনতি করিবেন না বা করাইবেন না।

বিজ্ঞ আদালতের নির্দেশ মোতাবেক উভয় পক্ষই স্ব স্ব অবস্থানে, অবস্থান করিয়া নাশিলী জমিতে শান্তি শৃঙ্খলা বজায় রাখিবেন মর্মে আদেশ প্রদান করেন। এ মর্মে পলাশবাড়ী থানার এস.আই সঞ্জয় কুমার সাহা বাদী ও বিবাদীপক্ষকে নোটিশ দ্বারা অবগত করেন, যে পক্ষই আইন শৃঙ্খলার বিঘ্ন ঘটাইবে সে পক্ষের বিরুদ্ধে কঠোর আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। নালিশী জমি গাইবান্ধা জেলার পলাশবাড়ী থানাধীন নূরপুর গ্রামের জেএল- ৪২, আর এস খতিয়ান- ৩৯, দাগ- ৪৫১ জমি- ৬৩ শতক। আর এস খতিয়ান- ২১ দাগ- ৪৪৭ জমি ৪৫ শতক। একুনে ১০৮ শতক জমির মধ্যে বাদীর দাবী ২৫ শতক জমি। নালিশী জমি নিয়ে কঠোর নিষেধাজ্ঞ থাকা স্বর্ত্বেও বিবাদীপক্ষ গত মঙ্গলবার বসবাস করার একটি ঘর ভেঙে ফেলে বিবাদীপক্ষ সেখানে অবকাঠানো নির্মাণের কাজ করছে।


সম্পাদক

নির্বাহী সম্পাদকঃ মাসুদ রানা পলক প্রকাশক মোঃ আবুল হাসান মোবাইল নাম্বার 01860003666

বার্তাকক্ষ

মোবাইল নাম্বার 09638870180