দৃক গ্যালারিতে ঠাকুরগাঁওয়ের সাংবাদিক মামুনের ‘ফেরারি পথ’

প্রকাশিত: ১০:২১ পূর্বাহ্ণ, মার্চ ১২, ২০২১

ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি ঢাকায় শুরু হয়েছে আলোকচিত্র সাংবাদিকদের গল্প ও অভিজ্ঞতা নিয়ে ১০ দিনব্যাপী প্রদর্শনী ‘কারারুদ্ধ চিরকুট ও অন্যান্য গল্প’৷ সেখানে স্থান পেয়েছে দেশের বিভিন্ন জেলার সর্বমোট ১৩ জন আলোকচিত্রীর কাজগুলোর মধ্যে ঠাকুরগাঁওয়ের সাংবাদিক আল মামুন জীবনের ‘ফেরারি পথ’।

বুধবার (১১ মার্চ) দৃক পিকচার লাইব্রেরির উদ্যোগে এ প্রদর্শনী শুরু হয়েছে৷ চলবে আগামী ২০ মার্চ পর্যন্ত। সংবাদিক আল মামুন জীবন দৈনিক অধিকার ও স্থানীয় অনলাইন নর্থবেঙ্গল২৪ ডট নেট পত্রিকায় কর্মরত আছেন।

নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জে পেশাগত দায়িত্বপালনকালে গুলিবিদ্ধ হয়ে নিহত সাংবাদিক বুরহান উদ্দিন মুজাক্কির এবং ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের অধীনে হয়রানি-নিপীড়নমূলক মামলায় নির্যাতনের শিকার হয়ে কারাগারে মৃত লেখক মুশতাক আহমেদের সাহস ও স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে এক মিনিট নীরবতা পালনের মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করা হয়।

অনুষ্ঠানে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে গ্রেপ্তার হওয়া আলোকচিত্র সাংবাদিক শফিকুল ইসলাম কাজল এবং আল মামুন জীবন তাদের নিপীড়নের অভিজ্ঞতার কথা বলেন এবং ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন বাতিল করার সংগ্রামে সামিল হতে সবাকে আহ্বান জানান।

প্রদর্শনীতে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের কারণে সাংবাদিকরা যে ভয় ও প্রতিকূলতার মধ্যে কাজ করছেন সেই অভিজ্ঞতার পাশাপাশি করোনাকালীন অর্থনৈতিক অনিশ্চয়তা এবং সঙ্কট নিয়ে গল্প উপস্থাপন করা হয়েছে।

প্রদর্শনীতে উত্থাপিত দেশের বিভিন্ন জেলার সর্বমোট ১৩ জন আলোকচিত্রীর কাজগুলো হচ্ছে- সাবিনা ইয়াসমিনের ‘অন্তর্দ্বন্দ্ব’, জয়ীতা রায়ের ‘আলোর মানুষ’, ফারজানা আক্তারের ‘স্মৃতি’, সুজাউল ইসলাম সুজার ‘ত্রিশূল’, আবু জাফরের ‘কারারুদ্ধ চিরকুট’, মনন মুনতাকার ‘স্থবির সময়’, নাজমুল ইসলামের ‘ছাঁটাই সংবাদ’, রাহাত করিমের ‘অতল শূন্যতা’, নিপা মোনালিসার ‘অপরাজেয়’, মো. আল মামুন জীবনের ‘ফেরারি পথ’, আব্দুর রায়হান জুয়েলের ‘৩৪ বছর’, একজন পাহাড়ি সাংবাদিকের ‘জলপাই নজর’ এবং সৈয়দ মাহফুজা মিষ্টির‘ ৫.০০টার সংবাদ’৷

আগামী ২০ মার্চ প্রতিদিন বিকেল ৩টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত চলবে এ প্রদর্শনী। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে দেশ ও বিদেশের বিভিন্ন গণমাধ্যমে কর্মরত আলোকচিত্রী সাংবাদিকরা উপস্থিত ছিলেন।


সম্পাদক

নির্বাহী সম্পাদকঃ মাসুদ রানা পলক প্রকাশক মোঃ আবুল হাসান মোবাইল নাম্বার 01860003666

বার্তাকক্ষ

মোবাইল নাম্বার 09638870180