রাজধানীতে শেষ হলো হস্তশিল্প মেলা

প্রকাশিত: ১০:২৪ পূর্বাহ্ণ, মার্চ ১৪, ২০২১

কেউ রঙ বেরঙের কাগজ কেটে হস্তশিল্পের নান্দনিক পণ্য বানিয়েছেন, কেউ বা বিদ্যুতের বিপরীতে গ্যাস ওভেন বানিয়ে তাক লাগিয়েছেন। এমন প্রয়োজনীয় ও আকর্ষণীয় পণ্য নিয়ে শনিবার (১৩ মার্চ) শেষ হলো রাজধানীতে হস্তশিল্প মেলা। করোনার মধ্যেও মেলায় বেশ সাড়া পেয়েছেন বিক্রেতারা। উদ্যোক্তাদের উৎসাহ বাড়াতেই এই আয়োজন বলে জানায় হস্তশিল্প এসোসিয়েশন।

মেলা মানেই চেনা-অচেনা ক্রেতা-উদ্যোক্তার মেলবন্ধন তৈরি করা। করোনায় এমন আয়োজন অনেকটাই স্থবির হলেও ধীরে ধীরে সরব হচ্ছে মেলাগুলো। রাজধানীর মোহাম্মদপুরের তুরাগ কনভেনশন হলে সীমিত পরিসরে আয়োজন করা হয় ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প মেলার। এতে অংশ নেন  বিভিন্ন  পণ্য নিয়ে উদ্যোক্তারা।

মেলায় রংয়ের কাগজ কেটে আঠা দিয়ে সুতোর ওপর বসিয়ে তৈরি করা ঘড়ি, ওয়ালমেট, ফুল নিয়ে এসেছেন উদ্যোক্তা তানিয়া পারভিন। খুব অল্প সময়েই হাতে খড়ি হস্তশিল্পে। তবে কাজে রয়েছে নান্দনিকতা। তিনি জানান, ইউনিক পণ্য তৈরির জন্য যেসব সহযোগি পণ্য প্রয়োজন তার অনেক কিছুই সহজে না পাওয়ায় কষ্টসাধ্য হয়ে পড়ে উৎপাদন।

মেলায় অংশ নিয়েছেন মধ্যবয়সী আরেক উদ্যোক্তা সাইফুন নাহার আরজু। বেশ সাড়া জাগিয়েছেন ইলেক্ট্রিক ওভেনের বিপরীতে গ্যাস ওভেন তৈরি করে। এর মাধ্যমে বেকারি বিভিন্ন পণ্য বানিয়ে অনেকেই ব্যবসা করছেন বলে জানান তিনি।

নানা ধরণের পণ্য নিয়ে আসা উদ্যোক্তারা ইতিবাচক সাড়া পেয়েছেন এ মেলায়। প্রতি উদ্যোক্তাই তিন দিনের মেলায় প্রায় ১৫ থেকে ২০ হাজার টাকার পণ্য বিক্রি করেছেন। তবে  তাদের অভিযোগ-  পরিসর বড় হলে ও প্রচারণা ভালোভাবে করা হলে বিক্রি আরও বাড়ত। এছাড়া ব্যাংক ঋণের ক্ষেত্রে বাস্তবিক সহায়তা চান তারা।

এদিকে মেলা কর্তৃপক্ষ বাংলাদেশ হস্তশিল্প এসোসিয়েশন সভাপতি আজিজুর রহমান বলেন, স্বল্প পরিসরে হলেও এ মেলা উৎসাহ বাড়াবে নতুনদের। এছাড়া সরকারি কর্মকর্তা, নতুন উদ্যোক্তা, ক্রেতাদের সাথে পরিচয় করিয়ে দেয়ার জন্য এ আয়োজন বিশেষ ভূমিকা রাখবে।

এগারোই মার্চ থেকে ১৩ই মার্চ পর্যন্ত তিন দিনের এই মেলায় অংশ নেন ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্পের ৪২ জন নতুন পুরনো উদ্যোক্তা।


সম্পাদক

নির্বাহী সম্পাদকঃ মাসুদ রানা পলক প্রকাশক মোঃ আবুল হাসান মোবাইল নাম্বার 01860003666

বার্তাকক্ষ

মোবাইল নাম্বার 09638870180