অগ্নিঝরা ২১ মার্চ: বঙ্গবন্ধু-ইয়াহিয়ার অনির্ধারিত বৈঠক, ভুট্টোর ঢাকা সফর

প্রকাশিত: ১১:১৫ পূর্বাহ্ণ, মার্চ ২১, ২০২১

ডেস্ক উত্তাল মার্চের প্রতিটি দিনই ঘটনাবহুল। অহিংস অসহযোগ আন্দোলনের বিংশতম দিনে মুক্তিপাগল হাজার হাজার মানুষের দৃপ্ত পদচারণায় রাজধানী ঢাকা অগ্নিগর্ভ হয়ে ওঠে। সর্বস্তরের মানুষের সম্মিলিত মিছিল ‘জয়বাংলা’, ‘জয় বঙ্গবন্ধু’ স্লোগান তুলে কেন্দ্রীয় শহিদ মিনার অভিমুখে এগিয়ে চলে। সেখানে মুক্তি অর্জনের শপথ নিয়ে মিছিল যায় বঙ্গবন্ধুর বাসভবনে।
বিকেলে চট্টগ্রামে ন্যাপের প্রধান মওলানা আবদুল হামিদ খান ভাসানী পোলো গ্রাউন্ডে এক বিশাল জনসভায় বলেন, আলোচনায় ফল হবে না। এদেশের হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতি থেকে চাপরাশি পর্যন্ত যখন প্রেসিডেন্ট ইয়াহিয়াকে মানে না, তখন শাসনক্ষমতা শেখ মুজিবের হাতে দেয়া উচিত।

২১ মার্চ অভূতপূর্ব কড়া নিরাপত্তার মধ্যে পিপলস পার্টির প্রধান জুলফিকার আলী ভুট্টো নির্বাচনের পরে দ্বিতীয়বারের মতো ঢাকায় আসেন। ভুট্টোর সঙ্গে ছিলেন দলের সেক্রেটারি জেনারেল জে. এ রহিম মিয়া, মাহমুদ আলী কাসুরী, গোলাম মোস্তফা জাতো, মমতাজ আলী ভুট্টোসহ মোট ১২ জন উপদেষ্টা।

বিমানবন্দর এবং হোটেল ইন্টারকন্টিনেন্টালে তারা অস্বস্তিকর পরিস্থিতে পড়েন। সেই পরিস্থিতি নিয়ে দৈনিক আজাদ রিপোর্ট করে : এমনকি হোটেলের লিফটও তাকে বহনে রাজি হয়নি। ভুট্টো লিফটে উঠতে গেলে হঠাৎ সেটি অচল হয়ে পড়ে।

অনির্ধারিত এক বৈঠকে বসে প্রেসিডেন্ট ইয়াহিয়া ও বঙ্গবন্ধু। সকালে জাতীয় পরিষদের সংখ্যাগরিষ্ঠ দলের নেতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান প্রেসিডেন্ট ভবনে প্রেসিডেন্ট ইয়াহিয়া খানের সময়ে পঞ্চম দফা বৈঠকে মিলিত হওয়ার আগে তার নিজ বাসভবনে বিশিষ্ট আইনজীবী এ কে ব্রোহির সঙ্গে এক সংক্ষিপ্ত আলোচনায় মিলিত হন। প্রেসিডেন্টের সঙ্গে পঞ্চম দফা সেই ৭০ মিনিটের বৈঠকে প্রাদেশিক আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক তাজউদ্দীন আহমদ বঙ্গবন্ধুর সঙ্গে ছিলেন।
শহরের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে মিছিলকারীরা বঙ্গবন্ধুর বাসভবনের সামনে সমবেত হয়। মিছিলকারীদের উদ্দেশ্যে বঙ্গবন্ধু ঘোষণা করেন, ‘আন্দোলন শিথিল হবে না’। অন্যদিকে, স্বাধীন বাংলা কেন্দ্রীয় ছাত্র সংগ্রাম পরিষদ এক বিবৃতিতে ২৩ মার্চ প্রতিরোধ দিবস পালনের আহ্বান জানায়।

এদিকে সন্ধ্যায় জুলফিকার আলী ভুট্টো কড়া সেনা প্রহরায় প্রেসিডেন্ট ভবনে যান। সেখানে ভুট্টো দুই ঘণ্টারও বেশি সময় প্রেসিডেন্টের সঙ্গে রুদ্ধদ্বার বৈঠকে মিলিত হন। প্রেসিডেন্টের সঙ্গে বৈঠক শেষে হোটেলে ফিরেই ভুট্টো তার উপদেষ্টাদের নিয়ে বৈঠকে বসেন। এর আগে হোটেল লাউঞ্জে অপেক্ষমাণ সাংবাদিকদের ভুট্টো বলেন, এই মুহূর্তে আমি এটুকু বলতে পারি যে সবকিছু ঠিক হয়ে যাবে। ভুট্টো সাংবাদিকদের আর কোনো সময় না দিয়ে সরাসরি লিফটে চড়েন। সাংবাদিকেরা তার সহগামী হতে চাইলে ভুট্টোর ব্যক্তিগত প্রহরীরা অস্ত্র উঁচিয়ে বাধা দেয়।

নুরে আলম সিদ্দিকী, শাহজাহান সিরাজ, আ. স. ম আব্দুর রব ও আবদুল কুদ্দুস মাখন এই চার নেতা প্রতিরোধ দিবস কর্মসূচি ঘোষণা করে বলেন :

১. এদিন ভোর ৫ টায় সরকারি ও বেসরকারি ভরনে স্বাধীন বাংলার পতাকা উত্তোলন।
২. ভোর ৫ টায় প্রভাতফেরি ও শহীদের মাজারে পুষ্পমাল্য অর্পণ
৩. ৯ টায় পল্টন ময়দানে জয়বাংলা বাহিনীর কুচকাওয়াজ।
৪. ১১ টায় বায়তুল মোকাররমে ছাত্র জনসভা

স্বাধিকারের দাবিতে নারায়ণগঞ্জে ছাত্রজনতা দুপুর ১ টায় দীর্ঘ জাহাজ মিছিল বের করে। ভাসানী ন্যাপের পূর্বাজ্ঞল শাখার সাধারণ সম্পাদক মশিউর রহমান যাদু মিয়া এক বিবৃতিতে- জয়দেবপুরের ঘটনায় দুঃখ প্রকাশ করে গণহত্যার প্রতিশোধমূলক ব্যবস্থা গ্রহণের জন্যে জনগণের কাছে আহ্বান জানান। এই দিনে বঙ্গবন্ধুর সঙ্গে দেখা করে পাকিস্তানের বিশিষ্ট আইনজীবী এ. কে. ব্রোহী।


সম্পাদক

নির্বাহী সম্পাদকঃ মাসুদ রানা পলক প্রকাশক মোঃ আবুল হাসান মোবাইল নাম্বার 01860003666

বার্তাকক্ষ

মোবাইল নাম্বার 09638870180