ঠাকুরগাঁওয়ে দুই সন্তানের জননীকে ধর্ষণের চেষ্টা

প্রকাশিত: ৩:০০ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ৬, ২০২১

ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধিঃ ঠাকুরগাঁওয়ের বালিয়াডাঙ্গী উপজেলার ৩ নং ধনতলা ইউনিয়নের বানাগাঁও গ্রামের সুধীর চন্দ্র (৪৭) এর বিরুদ্ধে দুই সন্তানের জননী সুমিতা রানী(২৬) কে জোর পূর্বক ধর্ষণের চেষ্টার অভিযোগ পাওয়া গেছে।
জানা যায়, রবিবার( ৪ এপ্রিল) সকালে সুমিতা ও সুধীর বাড়ির পার্শে একটি খড়ি ঘরে ধর্ষণের চেষ্টার ঘটনা ঘটে।

প্রত্যক্ষদোষী সুমিতা রানীর শাশুড়ী বলেন, রবিবার সকালে আমার বউমা ঘর মুছার জন্য খড়ি ঘরের সাথে থাকা মাটি আনতে যায়, আশেপাশে কেউ না থাকায় সুধীর সুমিতাকে জাপটে ধরে এবং ধর্ষণের চেষ্টা করে, তখন আমি দেখে ফেলায় সুধীর দৌড়ে পালিয়ে যায়।

এ বিষয়ে ভুক্তভোগী সুমিতা রানী বলেন, আমি সকালে মাটি আনতে যাই একা পেয়ে সুধীর আমাকে ধর্ষণের চেষ্টা করে কিন্তু আমার শাশুড়ী দেখে ফেলায় সুধীর দৌড়ে পালিয়ে যায়, তিনি বলেন সুধীর প্রায় আমাকে কু প্রস্তাব দিয়ে আসছে ।
সুমিতা বলেন, লম্পট সুধীরের দৃষ্টান্ত শাস্তি চাই।

সুমিতার স্বামী উদয় চন্দ্র বলেন, আমরা গরিব মানুষ প্রতি দিন সকালে কাজে চলে যাই সেই সকালে আমি ঘুম থেকে উঠার আগে আমার স্ত্রী বাড়ির পার্শে একটি খড়ি ঘরের সাথে মাটি আনতে যায় ঘর মুছার জন্য , কিন্তু সেখানে ওত পেতে থাকা সুধীর আমার স্ত্রীকে জোর পূর্বক ধর্ষণের চেষ্টা করে ঐ অবস্থায় আমার মা দেখে ফেলে। তিনি আরও বলেন, সুধীর একজন খারাপ ও লম্পট মানুষ তার বিরুদ্ধে ইউপি চেয়ারম্যানের কাছে বিচার দিয়েছি আমি উচিৎ বিচার চাই।

এ বিষয় সুধীরের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি কোন কথা বলতে রাজি হয়নি।

স্থানীয় ইউপি সদস্য ইশ্বর চন্দ্র বলেন, এ বিষয় আমাকে অবগত করছে এবং গতকাল একটা সালিশ হওয়ার কথা ছিল কিন্তু হয় নি।

৩ নং ধনতলা ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান সমর চ্যাটার্জির নুপুরের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমি ঘটনা শুনে সেখানে গেছিলাম ভুক্তভোগী সুমিতা ও তার পরিবারের কথা শুনেছি তবে ঘটনা সত্য।
তারপর সুধীর চন্দ্র কে ডেকেও কোন সাড়া দেয় নি, আমি আজকে দেখি যদি আমার কাছে আসে তাহলে স্থানীয় ভাবে মিমাংসা করার চেষ্টা করব নইলে ভুক্তভোগী পরিবার আইনের আশ্রয় নিবে প্রয়োজনে সহযোগিতা করবো।


সম্পাদক

নির্বাহী সম্পাদকঃ মাসুদ রানা পলক প্রকাশক মোঃ আবুল হাসান মোবাইল নাম্বার 01860003666

বার্তাকক্ষ

মোবাইল নাম্বার 09638870180