যে কোনো সময় বিকল হতে পারে আন্তর্জাতিক স্পেস স্টেশন

ঠাকুরগাঁও ২৪ ঠাকুরগাঁও ২৪

নিউজ পেপার ওয়েব ডেস্ক

প্রকাশিত: ৫:০৫ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ৩, ২০২১

সেই ১৯৯৮ সালে তৈরি মহাকাশ থেকে পৃথিবীর ওপর নজর রাখতেই তৈরি করা হয়েছিল আন্তর্জাতিক স্পেস স্টেশন। তাই অধিকাংশ যন্ত্রপাতিই হয়ে পড়েছে সেকেলে। সম্প্রতি আইএসএসের রাশিয়ার অংশে ফাটল ধরা পড়ায় উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েছেন বিজ্ঞানীরা।

রুশ বিজ্ঞানীরা বলছেন, যন্ত্রপাতি আর হার্ডওয়্যার সেকেলে হওয়ায় যে কোনো সময় আন্তর্জাতিক স্পেস স্টেশনের অপূরণীয় ক্ষতি হয়ে যেতে পারে। ভ্লাদিমির সলভয়োভ জানান, আইএসএসের রাশিয়ার অংশের অন্তত ৮০ শতাংশ যন্ত্রপাতির মেয়াদ শেষ হওয়ার তারিখও পার হয়ে গেছে। যেই ছোট ফাটল দেখা গেছে, ভবিষ্যতে তা বড় বিপর্যয় ডেকে আনতে পারে বলেও হুঁশিয়ার করেছেন তিনি।

আরও পড়ুন:ঠাকুরগাঁওয়ে অপহরণ ও ধর্ষনের অভিযোগে মামলা : ধর্ষক গ্রেফতার

এর আগেও রাশিয়া তাদের অংশের হার্ডওয়্যার নিয়ে বারবারই কথা বলেছে আর নাসাকে জানিয়েছে, ২০২৫ সালের পর আর আইএসএসে থাকবে না তারা। ১৯৯৮ সালে এই প্রকল্পটি বাস্তবায়ন হয় রাশিয়া, যুক্তরাষ্ট্র, কানাডা, জাপান আর ইউরোপের কয়েকটি দেশের অর্থায়নে। এটি যেন ১৫ বছর নির্বিঘ্নে সেবা দিতে পারে সেভাবেই তৈরি করা হয়েছিল।
স্পেস কোম্পানি এনার্জিয়ার প্রধান প্রকৌশলী আর আন্তর্জাতিক স্পেস স্টেশনের রাশিয়ার অংশের প্রকৌশলী সলভয়োভ সতর্ক করে জানান, সিস্টেমটা যদি পুরোপুরি বিকল হয়ে পড়ে, এটি মেরামত করে আর ব্যবহার করা যাবে না।
তিনি বলেন, আইএসএসের প্রত্যেকটা যন্ত্রাংশের বয়স হয়েছে, খুব দ্রুতই এগুলো মেরামতের প্রয়োজন পড়বে। সাবেক এই নভোচারী বলেন, রাশিয়ার জায়রা মডিউলে যে ফাটল দেখা গেছে, সেগুলো এড়িয়ে যাওয়ার কোনো সুযোগ নেই। ১৯৯৮ সালে মহাকাশে পাঠানো সবচেয়ে পুরনো মডিউলগুলোর একটি রাশিয়ার জায়রা মডিউল। এই মডিউলটি আইএসএস এখন সংরক্ষণাগার হিসেবে ব্যবহার করে।
সলভয়োভ বলেন, সময়ের সঙ্গে সঙ্গে এই ফাটলগুলো বড় হবে। এর আগে এপ্রিলে রাশিয়ার উপপ্রধানমন্ত্রী ইউরি বরিসভ বলেন, রাশিয়ার মডিউল ঝুঁকিপূর্ণ, যে কোনো বিপজ্জনক ঘটনা ঘটতে পারে।
রুশ স্পেস এজেন্সি রসকসমস জানায়, পুরো সিস্টেমটির বয়স হয়েছে। ১০ বছর কার্যক্রম পরিচালনা কঠিন হয়ে পড়বে আইএসএসের জন্য। রাশিয়ার স্পেস প্রোগ্রামের বাজেট স্বল্পতা আছে, পাশাপাশি দুর্নুীতির কারণে এই খাতটি খুব বেশি এগোতে পারেনি। দেশটির নাউকা রনিসার্চ মডেলের একটি জেট আইএসএস’এ পাঠানো হয়েছিল। কিন্তু যান্ত্রিক ত্রুটির কারণে এই জেট আইএসএসকে ভোগান্তিতে ফেলে। এর আগে ২০১৯ সালের জেভেজদা মডিউলও আইএসএসকে জটিলতায় ফেলে।
এরপরও বহাল তবিয়তে কাজ করে যাচ্ছে রাশিয়ার স্পেস এজেন্সি। বুধ গ্রহে স্পেস ক্রাফট পাঠানোর পরিকল্পনা আছে তাদের। পাশাপাশি চাঁদে নভোচারীদের নিতে আগামী বছরই স্পেস ক্রাফট বানাবে রসকসমস। সঙ্গে রকেট বানিয়ে সেই রকেট দিয়ে মহাকাশে নভোচারীদের মহাকাশে ঘোড়াবে সংস্থাটি।


সম্পাদক

নির্বাহী সম্পাদকঃ মাসুদ রানা পলক প্রকাশক মোঃ আবুল হাসান মোবাইল নাম্বার 01860003666

বার্তাকক্ষ

মোবাইল নাম্বার 09638870180